Beta

মধ্যবিত্ত শ্রেণিকে হলমুখী করবে ‘আয়নাবাজি’ : অমিতাভ রেজা

২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১৭:১৫

জনপ্রিয় পরিচালক অমিতাভ রেজা

অমিতাভ রেজা পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘আয়নাবাজি’ মুক্তি পাবে আগামীকাল শুক্রবার। প্রথম পর্যায়ে ছবিটি মুক্তি পাবে সারা দেশের ২০টি প্রেক্ষাগৃহে। ছবিটির প্রধান তিন চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, পার্থ বড়ুয়া ও নাবিলা। ছবিটি প্রসঙ্গে এনটিভি অনলাইনের সঙ্গে আলাপ করেছেন অমিতাভ রেজা।

প্রশ্ন : ‘আয়নাবাজি’ ছবির গল্প আপনি ভিন্নধর্মী বলছেন, কেন?

উত্তর : চলচ্চিত্রের একধরনের নিজস্ব ভাষা আছে। আয়নাবাজিতে আমি এমন একটা গল্প বলতে চেয়েছি যে গল্পের ভাষার সঙ্গে সবাই পরিচিত। অনেক সহজলভ্য সেই ভাষা। এখন একটা কমন অভিযোগ শোনা যায় তা হলো, মধ্যবিত্ত শ্রেণির দর্শকরা হলে যেতে চায় না। কিন্তু আমি বলছি, আয়নাবাজি দেখতে মধ্যবিত্ত শ্রেণির দর্শকরা হলমুখী হবে। ছবিটিতে আমি এই শহরের মানুষের জীবনযাপনের কথা তুলে ধরেছি। বলতে চেয়েছি শহরের জানা-অজানা অনেক কথা। আমার কাছে গাউসুল আলম শাওনের এই গল্পটি মোটেও গতানুগতিক মনে হয়নি।

প্রশ্ন : ছবিতে চঞ্চল চৌধুরী ছয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তাঁর চরিত্রগুলো ও মেক-আপ আর্টিস্ট সম্পর্কে কিছু বলুন।

উত্তর : ছবিতে চঞ্চল চৌধুরীর নাম ‘আয়না’। আয়নায় বিভিন্ন চরিত্রের ছায়া খুঁজে পাবেন। মানে একজন মানুষ বেশ কিছু মানুষের চরিত্রকে তুলে ধরবেন। অভিনয়টা অত সহজ ছিল না। চঞ্চল বেশ ভালো করেছে। আর এই ছবির মেক-আপ আর্টিস্ট আমরা কলকাতা থেকে নিয়ে এসেছি। তাঁর নাম মোহাম্মদ আলী। ছবিতে যে ধরনের মেক-আপ দরকার ছিল, সে জন্য বাংলাদেশের কোনো মেক-আপ আর্টিস্টের প্রতি আমরা আস্থা রাখতে পারিনি। আস্থা ধরে রাখার জন্য কলকাতার মেকআপ আর্টিস্ট আমরা নিয়েছি।

প্রশ্ন : চলচ্চিত্র নিয়ে আপনার ভাবনা কী।

উত্তর : চলচ্চিত্র নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই। আমার দ্বিতীয় চলচ্চিত্রের কাজ শিগগির শুরু করব। এই চলচ্চিত্রের গল্পও মধ্যবিত্ত শ্রেণির দর্শককে আকৃষ্ট করবে। সবার কাছে চেনা গল্পই মনে হবে।

Advertisement