Beta

ফেসবুকে সরব নায়িকারা

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৫:০১ | আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৫:৩২

ফিচার ডেস্ক

আধুনিক সময়ে ফেসবুক হয়ে উঠেছে নিজের আবেগ-অনুভূতি প্রকাশের অন্যতম মাধ্যম। সাধারণ মানুষ থেকে তারকা, সবাই এখন সামাজিক যোগাযোগের এই মাধ্যমটিকেই প্রধান মাধ্যম করে নিয়েছেন নিজেদের কথা জানানোর জন্য। সম্প্রতি ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকারা ফেসবুকটি ব্যবহার করছেন নিজেদের ভক্ত ও দর্শকদের বিভিন্ন খবর জানানোর জন্য। বিশ্ব পরিস্থিতি নিয়ে যেমন তাঁরা উদ্বেগ প্রকাশ করছেন, আবার ব্যক্তিগত ক্ষোভটাও নিজেদের ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট করছেন তারকারা। যেমন অপু বিশ্বাস, শবনম বুবলী ও পরী মণি।

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে গত ১০ সেপ্টেম্বর একটি স্ট্যাটাস দেন অপু বিশ্বাস। সেই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ‘গতকাল ফেসবুকে লগইন করার পর এই ছবি দেখতে পাই। ছবিটার ওপর আমার চোখ আটকে যায়। এদের জায়গায় নিজেকে কল্পনা করি। আমারও একটা সন্তান আছে। বাংলাদেশে জন্ম না হয়ে আমার জন্মটা রাখাইন রাজ্যেও হতে পারত। আমিও তখন এ পরিস্থিতিতে পড়তে পারতাম। না, আর ভাবতে পারছি না। অনুভব করলাম, চোখের কোণে গরম তপ্ত জল গড়িয়ে পড়ছে। নিজের সন্তানকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরলাম আরো বেশি শক্ত করে। মানুষ কী করে এত অমানবিক হতে পারে? কী করে নির্দয় হয়। উফ! ভাবতে পারছি না। খোদা তুমি রহম করো। আমি একজন ছোটখাটো মানুষ, আমি খুব বেশি গুছিয়ে লিখতেও পারি না। দেশের ওপর মহলের প্রতি অনুরোধ করছি, তাদের পাশে আরো বেশি করে দাঁড়ান। তাদের প্রতি আরো বেশি সদয় হোন। সারা বিশ্ব দেখুক, আমরা কতটা শান্তি প্রিয় মানুষ। মানবতার জয় হোক।’

এদিকে বুবলী গত ৯ সেপ্টেম্বরে ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমাকে নিয়ে আর কত ষড়যন্ত্র করবি? আর কত ক্ষতি করার চেষ্টা করবি? কিছু মানুষকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে আর কত ছোটলোকি করাবি? আর কত ধোঁকা দিবি মানুষকে? তোর মুখের ভাষা, কথাবার্তা, আচার-আচরণ, হাসি দেখলেই মানুষ বোঝে তুই কোন ক্যাটাগরির... তোর ব্যাকগ্রাউন্ড নিয়ে কথা বলার রুচিও নেই। তোর ব্যাকগ্রাউন্ড নিয়ে কথা বললে তো ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি অবস্থা হবে তোর... আর আমার মনে হয়, কিছু মানুষ জানে তোর ব্যাপারে যে তুই আসলে কী? কোন যোগ্যতায় তুই আমাকে নিয়ে কথা বলিস? আমাকে নিয়ে সারাক্ষণ পড়ে থাকিস? নিজেকে আলোচনায় রাখতে? রাখ… এটাই পারবি তুই, সত্যি কে মিথ্যা আর মিথ্যাকে সত্যি বানিয়ে অট্টহাসি দিয়ে বাজে কথা বলে, মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে হাত করে তাদের ক্ষতি করাই তোর কাজ। করতে থাক, আল্লাহ আছেন একজন। তবে একটা কথা মনে রাখিস, জোর করে আর ছোটলোকি করে, ব্ল্যাকমেইল করে অন্যের ক্ষতি করে, হিংসামি করে কখনই কিছু হয় না, হয়তো সাময়িক, কিন্তু স্থায়ী না। কথায় আছে, কুকুর মানুষকে কামড়ালে, মানুষ কুকুরকে কামড়ায় না। তাই তোর কাজই কামড়ানো। ছোটলোক কোথাকার, তোর নাম উচ্চারণ করারও রুচি নেই। ছি!’

বোঝাই যাচ্ছে কারো ওপর তীব্র ক্ষোভ থেকেই বুবলী এমন স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। এর কয়েক দিন পর গতকাল সোমবার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পরী মণি। এই স্ট্যাটাসে কিন্তু ক্ষোভ নেই, আছে গঠনমূলক আহ্বান।

পরী নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘হায় রে… কাকে দেখে শিখব আমরা! কী-ই বা শিখব আর... বড়রা কী শেখাচ্ছেন এসব আমাদের! যাদের কাছে ফেসবুক এখন ঝগড়া করার উঠন। বাহ! কই কাজ করি আর কাদের সঙ্গে কাজ করি! প্রফেশনাল খাতিরে পদবিটা একই হিরোইন। Plz stop bringing your personal problems to the public. কারণ, লোকে স্বজাতি ভাবে আমাদের। এখানে কেউ ভালো করলে তার ভালোর ক্রেডিটের ভাগটাও যেমন সবাই পাই, তেমনি কারো মন্দ কাজের দায়ভারও লোকে কাঁধে তুলে দেয় আমাদের। আর কবে বুঝবেন সেটা আপনারা? আপনারা উচ্চশিক্ষিত, ভালো কথা। একটু উচ্চ মানসিকতারও হোন এবার। কোটি হৃদয়ের ভালোবাসা আর সম্মানের জায়গায় বসবাস আপনাদের। এসব বড্ড বেমানান।’

অন্যদিকে নিজের পারিবারিক জীবন নিয়ে ব্যস্ত আছেন মাহিয়া মাহি। স্বামী পারভেজ আহমেদ অপুর সঙ্গে একটি ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘পাথরের পৃথিবীতে কাচের হৃদয়, ভেঙে যায় যাক তার করি না ভয়, তবু প্রেমের তো শেষ হবে না।’

চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের ফাঁকে এসব স্ট্যাটাস ছাড়াও নায়িকারা নিয়মিত নিজেদের ছবি আপলোড করেন ফেসবুকে। এমনকি কখনো কখনো বন্ধু ও ভক্তদের সঙ্গেও চ্যাট করেন তাঁরা।

Advertisement
0.83135199546814