Beta

রাবির ভর্তি পরীক্ষায় সাক্ষাৎকার দিতে এসে আটক

১৪ নভেম্বর ২০১৭, ২০:৪৪

রাবি সংবাদদাতা

লিখিত পরীক্ষায় ইংরেজিতে সর্বোচ্চ নম্বর। মাধ্যমিক পরীক্ষায় ইংরেজিতে ছিল ‘ডি’। মৌখিক পরীক্ষায় ইংরেজিতে কিছু লিখতে বলা হয়। দেখা যায়, লিখিত পরীক্ষার ইংরেজির সঙ্গে তাৎক্ষণিক লেখা ইংরেজির কোনো মিল নেই!

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির আইন অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় এ ঘটনা ঘটে। খলিলুর রহমান নামের ওই ভর্তিচ্ছুর লেখার সঙ্গে তাঁর লিখিত পরীক্ষার হাতের লেখার কোনো মিলই পাননি শিক্ষকরা। আর এর কারণে জালিয়াতির অভিযোগে তাঁকে আটক করা হয়েছে। কেন মিল নেই, তার কোনো উত্তরও দিচ্ছেন না খলিলুর রহমান।

আজ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্সে ‘বি’ ইউনিটের সাক্ষাৎকার গ্রহণের সময় খলিলুর রহমানকে আটক করা হয়। আটক খলিলুর রহমান যশোর জেলার কোতোয়ালি থানার বাসিন্দা।

খলিল আইন অনুষদের ভর্তি পরীক্ষার মেধা তালিকায় ১৬তম স্থান অর্জন করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে মেধা তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য সাক্ষাৎকার নেওয়া হচ্ছিল। সাক্ষাৎকারের সময় শিক্ষার্থীদের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের নম্বরপত্র দেখা হয়। খলিলুর রহমান আইন অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজিতে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন। কিন্তু তিনি মাধ্যমিক পরীক্ষায় ইংরেজি বিষয়ে ‘ডি’ পেয়েছেন। এটা দেখে শিক্ষকদের খটকা লাগে। তখন তাকে ইংরেজিতে কিছু লিখতে বলা হয়।

শিক্ষকরা খলিলুরের লেখার সঙ্গে উত্তরপত্রের লেখা মিলিয়ে দেখেন দুই লেখার মধ্যে কেনো মিল নেই। পরে তাঁকে আবার উত্তরপত্রের লেখা দেখে লিখতে বলা হয়। উত্তরপত্র দেখে লেখার পরও দেখা যায় দুই লেখার মধ্যে মিল নেই। অমিলের কারণ জানতে চাইলে খলিলুর অসংলগ্ন কথা বলেন। পরে শিক্ষকরা তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর দপ্তরে হস্তান্তর করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘ওই ভর্তিচ্ছুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পরে তাঁকে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

এ বিষয়ে জানতে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

Advertisement
0.83003711700439