Beta

গাইবান্ধা-১ আসনে লাঙলের জয়

১৩ মার্চ ২০১৮, ২১:২৮ | আপডেট: ১৩ মার্চ ২০১৮, ২১:৪৭

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের উপনির্বাচনে জয়ী জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী। ছবি : সংগৃহীত

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। লাঙল প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৯২৬ ভোট।

শামীম হায়দার পাটোয়ারীর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফরুজা বারী পেয়েছেন ৬৮ হাজার ৯১৩ ভোট। নির্বাচনে গণফ্রন্টের শরিফুল ইসলাম মাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭১১ ভোট এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) জিয়া জামান খান আম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪১৭ ভোট।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন আজ মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

এদিকে আজ সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সকালের দিকে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি কিছুটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ে ভোটারের উপস্থিতি।

ভোটগ্রহণের সময় ভোটকেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা চেষ্টার অভিযোগে চারজনকে আটক করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রত্যেকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের গোপালচরণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র থেকে তাঁদের আটক করা হয়।

আটক ব্যক্তিরা হলেন গোপালচরণ এলাকার রেজা, জিকু ও ইউনুস মাস্টার। অপরজনের নাম জানা যায়নি।

ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মো. ওবায়দুল হক বলেন, ভোটপ্রদান শেষে ওই চারজন ভোটকেন্দ্রে অবস্থান এবং বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করছিলেন। এ সময় তাঁদের আটক করা হয়।

২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনজুরুল ইসলাম লিটন দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হলে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনটি শূন্য হয়। পরে ২০১৭ সালের ২২ মার্চ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে জয়লাভ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদ। তিনিও সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে এক মাস ঢাকায় চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর মারা যান। ফলে আসনটি আবারও শূন্য হয়।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement