Beta

রাজধানীতে জেএমবির নেতাসহ মেরিন ইঞ্জিনিয়ার ‘জঙ্গি’ আটক

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৪:২৫ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:০৬

নিজস্ব সংবাদদাতা

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকা থেকে নিষিদ্ধি ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) দুই সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার রাত ১১টার দিকে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদের আটক করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

আজ মঙ্গলবার সকালে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‍্যাব-২-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আনারুজ্জামান।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আটক ব্যক্তিদের একজন বাংলাদেশ মেরিন একাডেমির ৪৬তম ব্যাচের মেরিন ইঞ্জিনিয়ার নাজমুল ইসলাম শাওন (২৬)। অন্যজনের নাম মো. নুরুজ্জামান লাবু (৩৯)। তিনি ঝিনাইদহ জেএমবির একজন নেতা। অভিযানের বিষয়টি বুঝতে পেরে আরো কয়েকজন জেএমবি সদস্য পালিয়ে গেছে বলেও জানায় র‍্যাব।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আনারুজ্জামান জানান, জেএমবি সদস্যরা নাশকতা করতে পারে এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাঁরা অভিযান পরিচালনা করেন। আটক ব্যক্তিদের কাছ থেকে দুটি চাপাতি, জঙ্গিবাদে উৎসাহ দেয় এমন বই, ৭২৪ মার্কিন ডলারসহ অন্যান্য সামগ্রী উদ্ধার করা হয়।

দুই ব্যক্তিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অনলাইনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে প্রায় ৪০-৫০ জন সমমনা উগ্রবাদীর মধ্যে তাঁরা সংযোগ স্থাপন করেছেন। দেশে বিভিন্ন নাশকতা করার জন্যই মূলত তাঁরা সংগঠিত হচ্ছিলেন। 

আনারুজ্জামান জানান, নাজমুল ইসলাম শাওন পেশায় একজন মেরিন ইঞ্জিনিয়ার। ২০১৫ সালে তিনি উগ্রবাদী ধর্মীয় মতাদর্শের প্রতি আসক্ত হন। ওই বছরই আবু আবদুল্লাহ নামের একজনের সঙ্গে ফেসবুকে তাঁর পরিচয় হয়। এই আবু আবদুল্লাহই শাওনকে জেএমবিতে অন্তর্ভুক্ত করেন। পরে মো. সুলায়মান নামের একজনের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। যার মাধ্যমে একই পেশাজীবীদের মধ্য উগ্রবাদ মতাদর্শ প্রচার করতেন তিনি। 

অন্যদিতে নুরুজ্জামান লাবু বাসের হেলপার, ট্রাকের হেলপার এবং লন্ড্রির দোকানে কাজ করতেন। বর্তমানে তিনি রিকশাচালক হিসেবে কাজ করছিলেন। তবে নুরুজ্জামান লাবু ঝিনাইদহ অঞ্চলের আঞ্চলিক জেএমবির নেতা এবং বোমা বানাতে পারদর্শী। ২০১৫ সালে সাইফ ও মারুফ নামের দুই ব্যক্তির মাধ্যমে ধর্মীয় উগ্রবাদের সঙ্গে জড়ান তিনি। বিভিন্ন সময়ে তাঁর নেতৃত্বে ঝিনাইদহ স্কুল মাঠে ও একটি গ্যারেজে গোপন বৈঠক করতেন জেএমবির সদস্যরা। 

রিকশা চালানোর অজুহাতে লাবু বিভিন্ন এলাকায় রেকি করতেন এবং মুসলমান থেকে ধর্মান্তরিত খ্রিস্টানদের অনুসরণ করতেন। এরই মধ্যে তেমন একজন ধর্মান্তরিত খ্রিস্টানকে কুপিয়ে হত্যা করার জন্য তাকে অনুসরণও করছেন বলে র‍্যাবের কাছে নিজেই স্বীকার করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

Advertisement
0.97203516960144