Beta

সোফিয়ার নাগরিকত্ব নিয়ে সৌদির কড়া সমালোচনা ইসলামিক পার্টির

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:০৯

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির দাবি, সৌদি আরব সরকার রোবট সোফিয়াকে নাগরিকত্ব প্রদান করে মুসলিম নাগরিকদের হৃদয়ে আঘাত করেছে। সংগঠনটির নেতারা বলেছেন, ‘আমরা এই নাগরিকত্ব নিন্দা জানাই।’ সোফিয়ার নাগরিকত্ব বাতিলের দাবিও জানিয়েছে ওই সংগঠন। 

গতকাল বুধবার পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানান ওই সংগঠনের চেয়ারম্যান মহীউদ্দিন আহমেদ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে সংগঠনের মহাসচিব কামরুল আহসান এনটিভি অনলাইনকে বিবৃতির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তবে পুরো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রোবট সোফিয়াকে লেখা হয়েছে ‘সুফিয়া’ নামে।

গতকালই ঢাকায় ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৭’ শীর্ষক আয়োজনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নেয় রোবট সোফিয়া। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথাও বলে ওই রোবট। 

হংকংভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হ্যানসন রোবটিকস ‘সোফিয়া’কে তৈরি করেছে। গত ২৬ অক্টোবর রিয়াদে অনুষ্ঠিত একটি সম্মেলনে সোফিয়াকে নাগরিকত্ব প্রদান করে সৌদি আরব।
বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির মহাসচিব মো. কামরুল আহসান স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মানুষকে সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ তাঁর ইবাদত বন্দেগি করার জন্য। আর রোবটের সৃষ্টিকর্তা হলো ডেভিড হ্যানসন, যিনি একজন মানুষ। মানুষকে আল্লাহ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে সৃষ্টি করে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন। এই রোবট পরিচালিত হয় একজন মানুষ দ্বারা। মানুষ পরিচালিত হয় একমাত্র আল্লাহ দ্বারা। তাই রোবট কখনো মানব মর্যাদা পেতে পারে না। তাকে এক জায়গায় দাঁড় করানো শেরেক সমতুল্য।’
ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সৌদি সরকার রোবট সোফিয়াকে নাগরিকত্ব প্রদান করে মুসলিম নাগরিকদের হৃদয়ে আঘাত করেছে। আমরা এই নাগরিকত্বকে নিন্দা জানাই।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘তার নাগরিকত্ব যদি কোনো খ্রিস্টধর্মাবলম্বী দেশ প্রদান করত, তাহলে বিষয়টি হতো ভিন্ন।’   

সংগঠনের মহাসচিব কামরুল আহসান জানান, তাঁদের সংগঠন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (এনডিএফ) নামে একটি জোটের আওতাভুক্ত। 

Advertisement
0.78386807441711