Beta

‘মৌলবাদীরা রাষ্ট্রক্ষমতায় এলে আমরা নিঃশেষ হয়ে যাব’

১৪ নভেম্বর ২০১৭, ২২:৪৫

রাজশাহীর নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে অনুষ্ঠিত সমাবেশ দিলীপ বড়ুয়া। ছবি : এনটিভি

বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের (এমএল) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে শাস্তি নিশ্চিত করেছেন। আজও তিনি জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছেন।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে অনুষ্ঠিত সমাবেশ এ কথা বলেন সাবেক এ শিল্পমন্ত্রী। রাজশাহীতে রুশ বিপ্লবের শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষে জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ গণসংগীত ও সমাবেশের আয়োজন করে।

দিলীপ বড়ুয়া বলেন, ‘আমরা মনে করি ১৪ দলের প্রয়োজনীয়তা আছে। কারণ আজকে যদি মৌলবাদীরা কোনোক্রমে বিএনপির নেতৃত্বে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে, তাহলে আমরা চিরদিনের মতো নিঃশেষ হয়ে যাব।’ তিনি বলেন, ‘সরকার বদল হলেই মানুষের জীবনে পরিবর্তন আসবে না, রাষ্ট্রের পতাকা বদল হলেই মানুষের মুক্তি আসবে না। আমি দিলীপ বড়ুয়া মন্ত্রী হলেই মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন আসবে না। এজন্য প্রয়োজন বিপ্লবী সত্ত্বা। সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব ছাড়া জনগণের মুক্তি নেই। জননেতা আতাউর রহমানের মতো সফল মানুষের রাজনীতি রাজনৈতিক দলের কর্মীদের চলার পথে শক্তি জোগায়। জঙ্গিবাদ-মৌলবাদকে মোকাবিলা করতে না পারলে অর্থনৈতিক মুক্তি ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণ হবে না।’

ঢাকা থেকে মোবাইল ফোনে আলোচনা সভায় অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স  আরেফিন সিদ্দিক এবং বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সিপিডির সাবেক নির্বাহী পরিচালক ড. মোস্তাফিজুর রহমান।

জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার ইকবাল বাদলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন জননেতা আতাউর রহমানের সন্তান ও রাজশাহী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, জননেতা আতাউর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর রাজনীতিবিদ মুস্তাফিজুর রহমান খান আলম, মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ডালিম, বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদ রাজশাহী শাখার সাধারণ সম্পাদক রাশেদ রিপন, আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সহ-সভাপতি মাসুদ রানা, রাজশাহী অ্যাকুপ্রেসার সোসাইটির পরিচালক ডা. রওশন আলী।

জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসলাম-উদ-দৌলার পরিচালনায় সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম খান, সেক্টর কমান্ডার ফোরাম রাজশাহী মহানগর সভাপতি শাহজাহান আলী বরজাহান, আশির দশকের ছাত্রনেতা সাবেক কাউন্সিলর শরিফুল ইসলাম বাবু, রাজশাহী জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ, জয় বাংলা পরিষদের আহ্বায়ক শফিকুজ্জামান শফিক, জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সদস্য মাহমুদ হাসান ফরহাদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই উদ্বোধনী নৃত্য পরিবেশন করে ধ্রুপদালোক ও রিমঝিম।

Advertisement
0.78184795379639